Header Border

ঢাকা, শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ ইং | ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ (বসন্তকাল) ১৯.৯৬°সে

কাফনের কাপড় পরে পৌরসভা ঘেরাও

নীলফামারী সংবাদদাতা

বাজার স্থানাস্তরের প্রতিবাদ এবং শহরের নয়াবাজার এলাকায় তা পুনঃস্থাপনের দাবিতে কাফনের কাপড় পড়ে পৌরসভা কার্যালয় ঘেরাও করেছে নীলফামারীর সৈয়দপুরের সবজি ব্যবসায়ীরা।

বৃহস্পতিবার (১১ জুন) বেলা ১২টায় পৌরসভা কার্যালয়ে গিয়ে ব্যবসায়ীদের সংগঠনের পক্ষে মেয়র বরাবর একটি স্মারকলিপিও দিয়েছেন তারা।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, শহরের নয়াবাজার এলাকায় দীর্ঘ ২৫ বছর আগে সবজি আড়তটি প্রতিষ্ঠা করে সৈয়দপুর পৌরসভা। ওই সবজি আড়তে কাঁচা শাক-সবজি, আলু, রসুন, আদা, পেঁয়াজ, মরিচ, লেবু, শসা প্রভূতি পাইকারি বেচাবিক্রি হয়ে থাকে। চলমান কারোনা ভাইরাসের সংক্রমন রোধে ও জনসমাগম এড়াতে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে এখানে পণ্য বিক্রি করা হয়। তবে শহরের নয়াবাজার সবজি আড়তটি সৈয়দপুর-দিনাজপুর বাইপাস মহাসড়কের পাশে মিস্ত্রিপাড়া এলাকায় ব্যক্তি মালিকাধীন জায়গায় উপজেলা প্রশাসনের মৌখিক নির্দেশে গত ১৩ মে স্থানান্তর করা হয়। গত ৩১ মে লকডাউন শিথিল করা হলে ব্যবসায়ীরা আবারও নয়াবাজার সবজির আড়তে ফিরে ব্যবসা শুরু করেন। তবে গত ১০ জুন পৌরসভার মেয়র অধ্যক্ষ আমজাদ হোসেন সরকার ঘোষণা দেন, সৈয়দপুর বাইপাস মহাসড়কের পাশে শহরের মিস্ত্রিপাড়া এলাকায় স্থানান্তরিত সবজি আড়তে কৃষি পণ্যের বেচাবিক্রি করতে হবে। এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি করা হয়েছে স্মারকলিপিতে।

এদিকে, সবজি বাজার সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. রাসেল বলেন, আগামী ১৩ জুনের মধ্যে সকল আড়তদারকে এ নির্দেশ মেনে চলতে বলা হয়েছে। অন্যথায় এ নির্দেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। এতে করে আড়তদাররা চরম বিপাকে পড়েছেন। আমরা পৌর মেয়রকে ওই ঘোষণা প্রত্যাহার করার এবং সবজি আড়ত নয়াবাজারে পুনঃস্থাপনের দাবি জানিয়েছি।

আলু বিক্রেতা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মো. আবুল কালাম বলেন, উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়ন ও পৌরসভা ছাড়াও আশপাশের দিনাজপুরের পাবর্তীপুর, চিরিরবন্দর, খানসামা, রংপুরের বদরগঞ্জ, তারাগঞ্জ, নীলফামারী সদর ও কিশোরগঞ্জ উপজেলার কৃষকরা তাদের উৎপাদিত কৃষি পণ্য নিয়ে এসে সৈয়দপুর সবজি আড়ত নয়াবাজারে বিক্রি করে থাকেন। স্থানীয় খুচরা সবজি বিক্রেতারাও এ পাইকারি আড়ত থেকে বিভিন্ন কৃষি পণ্য কিনে নিয়ে গিয়ে ভোক্তা সাধারণের কাছে বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করেন। তবে সবজি আড়তের দৈনন্দিন কর্মকাণ্ডের কারণে শহরে যানজটের সৃষ্টি হয় না বলে দাবি করেন আবুল কালাম।

তাদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে পৌর মেয়র বলেন, সৈয়দপুর উপজেলা প্রশাসন, পৌর পরিষদ ও পাইকারি সবজি ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করে বিষয়টির সুষ্ঠু সমাধানের উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে।

SHARE

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

জমি উদ্ধারে এসিল্যান্ডের পরিদর্শন
পলাশবাড়ী মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের উদ্বোধন
আদিতমারীতে মীনা দিবস উপলক্ষে র‌্যালী
গাইবান্ধার সাঘাটার বালু খেকো আবু তাহেরের খুঁটির জোর কোথায় !
গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে বিএনপি’র বিক্ষোভ সমাবেশ
লালমনিরহাটে ভ্যান উল্টে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু

আরও খবর

Android App